প্রসঙ্গ কবিতা



২৫ নভেম্বার বিকেলে ইএমকে সেন্টারে আয়োজিত হলো গাঁথার এবারের আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রসঙ্গ ছিল কবিতা। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি পিয়াস মজিদ, কবি জাহানারা পারভীন এবং  কবি আসাদ মান্নান।

৪৭-পরবর্তী বাংলা কবিতায় নারীকবিদের প্রভাব বিষয়ে আলোচনা করেছেন কবি পিয়াস মজিদ। পাশ্চাত্যের সিমোন দ্যা বুভ্যায়ার থেকে প্রাতীচ্যের কবি সুফিয়া কামাল, কবি মাহমুদা খাতুন সিদ্দীকার কথা তাঁর বক্তব্যে উঠে এসেছে। বিভিন্ন দশকের উল্লেখযোগ্য নারীকবিদের নাম ও তাঁদের বইয়ের নাম উল্লেখ করেছেন তিনি। সে-সময়ের প্রেক্ষিতে কবিতার প্রতিপাদ্য বিষয়, অনুভূতি প্রকাশের ধরণ আলোচনা করেছেন। তাঁদের অনেক কবিতাই পুনরায় পাঠ দাবি করে। কবি নুরুন নাহার, নাসিমা সুলতানা ও সুরাইয়া খানমের উদাহরণ টেনে তিনি বলেছেন, এটা দুর্ভাগ্য যে কবিদের মধ্যে নারী যাঁরা, তাঁদের নাম অসংশয়ে উচ্চারিত হয় না। কিছু বই রিপ্রিন্ট হলেও সংরক্ষণের অভাবে হারিয়ে গেছে অনেক কবির কবিতার বই। প্রাসঙ্গিকভাবে বলেছেন প্রবাসী নারীকবি এবং একইসাথে সাহিত্যের দুটো শাখা কথাসাহিত্য ও কবিতায় অবদান রাখা নারীদের কথা।

অনুষ্ঠানের এ পর্যায়ে মার্কিন কবি টিএস এলিয়ট ও জার্মান কবি রাইনের মারিয়া রিলকের কবিতায় নারীভাবনা বিষয়ে বক্তব্য রেখেছেন কবি জাহানারা পারভীন। তিনি নিজেই দুটো গবেষণামূলক প্রবন্ধের বই লিখেছেন। বই দুটো হলো, ‘রিলকে : নৈঃশব্দে ও নিঃসঙ্গতায়’ আর ‘এবং এলিয়ট’। তাদের জীবনের প্রতি ব্যক্তিগত আগ্রহ থেকেই তিনি বইদুটো লিখেছেন। তাঁদের সাহিত্যকর্ম, প্রেম, সংকট ইত্যাদি। রিলকেকে আবিষ্কার করেছেন, নারীদের নিয়ে তাঁর ভাবনা কেমন-কেমন ছিল। রিলকে নারীবাদী চেতনা, সম্পর্কের ভারসাম্যের কথা বলেছেন যা খুবই সমসাময়িক করে বলেছেন কবি জাহানারা পারভীন। ‘নিউ পোয়েমস’ এর ‘নারীর অদৃষ্ট’ পাঠ করেন এবং কবিতাটি নিয়ে আলোচনা করেন তিনি। এলিয়টের কবিতার প্রসঙ্গে এসেছে এমিলি, ভিভিয়েনএবং ভালোরির কথা।

কবি আসাদ মান্নানব বলেছেন ব্যক্তিগতভাবে কোন দৃষ্টিতে তিনি কবিতাকে দেখেন। কবিতা তাঁর কাছে তিরিশটি বছর দুই নয়নের জলে কবর ভিজিয়ে রাখার মতোই। কবিতার মধ্যস্থ শব্দ, বাক্য ছাড়াও রূপ রঙের খোঁজ করেছেন কবি আসাদ মান্নান।

অনুষ্ঠানে মডারেটর ছিলেন গাঁথার নির্বাহী কমিটির সদস্য কবি জুনান নাশিত।

কবি পিয়াস মজিদ, কবি জাহানারা পারভীন এবং কবি আসাদ মান্নানের কবিতা যথাক্রমে আবৃত্তি করেছেন নির্বাহী কমিটির সদস্য সালমা তালুকদার, তাবিয়া তাসমিয়া তুষা এবং কবি মালেকা ফেরদৌস। অনুষ্ঠানের উজ্জ্বলতা বাড়িয়েছেন অগ্রজ কবি রুবী রহমান; কবি, অনুবাদক ও সাহিত্যসমালোচক ড. মাসুদুজ্জামান; কথাসাহিত্যিক দিলারা মেসবাহ, কবি তুষার কবীর এবং আরও অনেক কবি ও কবিতাপ্রেমীদের আড্ডা-আলোচনায় অনুষ্ঠানটি মুখরিত ছিল।


2,114 Comments